Author Topic: ইন্টারভিউয়ের জন্য যে ৬ বিষয় জানা থাকা দর  (Read 589 times)

Ashikul Islam

  • Administrator
  • Silver Member
  • *****
  • Posts: 1012
  • মানুষ মরে গেলে পচে যায়, বেঁচে থাকলে বদলায়,


ইন্টারভিউয়ের সময় হাসিখুশি থাকলে তা কি চাকরির সম্ভাবনা বাড়ায়? চকচকে জুতা আর সুট পরলে কি কোনো উপকার হয়? চাকরিপ্রার্থীদের এমন সব প্রশ্নের উত্তরে ছয়টি টিপস দেয়া হল, যা কাজে লাগবে চাকরির ইন্টারভিউতে।



১. উপস্থিত হন ১৫ মিনিট আগেই
ইন্টারভিউয়ের দিনে আলসেমি করে কাটিয়ে গাড়ি মিস করলে চলবে না। ইন্টারভিউতে আপনার কখনোই দেরি করা উচিত নয়। সবচেয়ে ভালো হয় আপনি যদি ১৫ মিনিট আগে উপস্থিত হতে পারেন। এর আগে পৌঁছালে তা আপনার কাজে আসতে পারে বা নাও পারে।



২. জুয়া নয়, নিজেকে সঠিকভাবে উপস্থাপন
ইন্টারভিউয়ে যাওয়ার প্রস্তুতিতে অন্য সব বিষয়ে জ্ঞান অর্জনের আগে চাকরির বিস্তারিত জেনে নিন। বারবার জবের বিস্তারিত দেখে নিয়ে সেগুলো সম্পর্কে সঠিক ধারণা অর্জন করুন। চাকরিটি সম্পর্কিত যে কোনো প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকুন। মনে রাখবেন আপনি নিজেকে উপস্থাপন করছেন, জুয়া খেলছেন না।
চাকরিতে তারা প্রশ্ন করবে আপনার অভিজ্ঞতা, লক্ষ্য ও প্রতিষ্ঠানের কাজ বিষয়ে। আপনার প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার সময় অবশ্যই প্রশ্নকর্তা প্রতিষ্ঠানের কাজের বিষয়টি খেয়াল রাখবেন। তাদের কাজে জন্য কেমন মানুষ দরকার সে বিষয়টি খেয়াল রেখে প্রশ্নের উত্তর দিবেন।



৩. হাসিকে অধিকাংশই অবমূল্যায়ন করে
প্রথম দর্শনে আপনার উপস্থাপন ও গলার স্বরের সঠিক মাত্রা গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া ক্ষেত্রবিশেষে হাত মিলানো ও চোখে চোখ রাখা গুরুত্বপূর্ণ।
সাধারণত ইন্টারভিউয়ের সময় হাসা ও হাসিখুশি প্রার্থীকে অবমূল্যায়ন করে মানুষ। আপনাকে হতে হবে সচেতন ও দৃঢ়। আচার আচরণে বোঝাতে হবে, আপনি এমন একজন মানুষ, যে কাজ করার জন্য প্রস্তুত।



৪. সঠিক পরিচ্ছদ ও স্নায়ু নিয়ন্ত্রণ
কাপড় ও উজ্জ্বল জুতা কি উপকারে আসবে? এমন প্রশ্নের উত্তরে চাকরিবিষয়ক একটি বইয়ের লেখক জানিয়েছে, জুতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে নারীদের হিলসহ জুতা ও পুরুষদের একজোড়া সুন্দর ‍সু পরলে ভালো হয়। আর উভয়কেই মানসম্মত পোশাক পরতে হবে।
আপনি যদি ফ্যাশন জগতের কোনো ইন্টারভিউ দিতে যান, তাহলে অবশ্যই হাল-ফ্যাশনের পোশাক পরতে হবে। কর্পোরেট জগতের কোনো ইন্টারভিউয়ের জন্য অবশ্যই কর্পোরেট জগতের জন্য উপযুক্ত চকচকে পোশাক পরতে হবে। এছাড়া নার্ভাস বোধ প্রকাশ করা যাবে না কোনো অবস্থাতেই।



৫. মিথ্যা বলা যাবে না
এখনকার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর কল্যাণে কারো ইতিহাস খুঁজে বের করা খুবই সহজ। ফলে নিয়োগ করার আগে তারা আপনার পরিচিত মানুষদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারে। আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে আপনার বিষয়ে সবার কথা যেন একই হয়।



৬. ধন্যবাদ দিতে ভুলবেন না
ইন্টারভিউ শেষে সবাইকে ধন্যবাদ দিতে ভুলবেন না। আপনার বিষয়ে তাদের শেষ ধারণাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ভবিষ্যতেও এটা কাজে আসবে।
Ashikul Islam